ঢাকা বিভাগসারাদেশ

নরসিংদীর চরাঞ্চলে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু

ইনভেস্টিগেশন রিপোর্ট : নরসিংদীতে প্রবাসীর স্ত্রী এক সন্তানের জননী গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গৃহবধুর মৃত্যুর ঘটনাটি হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে এলাকার জনমনে চলছে নানা গুঞ্জন ।

গত শনিবার (৪জুলাই) গভীর রাতে নরসিংদী সদর উপজেলার চরাঞ্চল বাউশিয়া গ্রামে স্বামীর বাড়ীর বসত ঘরে গৃহবধুকে ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় পরিবার ও আশে পাশের লোকজন। ঝুলন্ত অবস্থা থেকে উদ্ধার করে আত্মীয় স্বজনরা নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

রবিবার (৫জুন) ময়না তদন্ত শেষে গৃহবধুর লাশ তার বাপের বাড়ী রসুলপুরে দাফন করা হয়েছে। এ ব্যপারে মৃতের বাপের বাড়ীর লোকজন নরসিংদী মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্বামী প্রবাসে থাকায় গৃহবধু বিপাশা’র সাথে তার জাঁ স্মৃতি বেগম এর পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। তাই ৪ বছরের শিশু সন্তান তানভীরকে নিয়ে বিপাশা বাপের বাড়ী রসুলপুর গ্রামে অবস্থান করছিল।

ঘটনার দিন গত (৪জুলাই) বিপাশা’র ননদ ও ননদের জামাই তাকে বাপের বাড়ী থেকে স্বামীর বাড়ী বাউশিয়া গ্রামে নিয়ে আসে। ওই দিন রাতে বিপাশা’র সাথে তার স্বামীর বড়ভাই ও জাঁ স্মৃতি বেগমের পারিবারিক বিষয়ে ঝগড়া বিবাদ হয়। গভীর রাতে বসত ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধু বিপাশাকে দেখতে পায় পরিবারের লোকজন। ঝুলন্ত অবস্থা থেকে উদ্ধার করে বিপাশাকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

বিপাশা’র শাশুড়ি বলেন, ছেলের বউটা আমার ভালো ছিল, আমার বড় ছেলের বউ স্মৃতি তার সাথে প্রায়ই ঝগড়া করতো এইজন্য অভিমান করে ফাঁসি দিয়েছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য লেচু মিয়া জানান, এটা হত্যা না আত্মহত্যা আমরা বুঝতে পারছিনা। ময়না তদন্তের আসলে বলা যাবে। তবে দুলাল মিয়ার স্ত্রী স্মৃতি বেগমের সাথে প্রায়ই তার ঝগড়া বিবাদ হতো। স্থানীয় লোকজন জানায়, বিপাশা ভালো মেয়ে ছিল, তার মৃত্যুর ঘটনা রহস্যজনক।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button