জাতীয়শিক্ষা ও সংস্কৃতি

জেনে নিন আজকের এই দিনের ইতিহাস

ইনভেস্টিগেশন রিপোর্টঃ আজ ১৯ জুলাই ২০২০, রোববার। ৩ শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ। গ্রেগরিয়ান বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ১৯৯ তম (অধিবর্ষে ২০০ তম) দিন। এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়। ১২৯৬ – জালালুদ্দিন খিলজিকে হত্যা করে আলাউদ্দিন খিলজি দিল্লির সিংহাসন দখল করেন।

১৭৬৩ – বক্সারের যুদ্ধে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর কাছে মীর কাসিমের পরাজয়।

১৯২৫ – এডলফ হিটলারের ‘মাইন ক্যাম্প’ গ্রন্থ প্রকাশিত হয়।

১৯৪৭ – ভাইসরয় লর্ড মাউন্টব্যাটেন ভারত ও পাকিস্তান নামে দুটি স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন।

১৯৪৯ – লাওসের স্বাধীনতা লাভ।

১৯৫২ – গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকের উদ্বোধন।

জন্মদিন

দ্বিজেন্দ্রলাল রায় (১৮৬৩ – ১৯১৩)

দ্বিজেন্দ্রলাল রায় ছিলেন একজন বিশিষ্ট বাঙালি কবি, নাট্যকার ও সংগীতস্রষ্টা। তিনি ডি. এল. রায় নামেও পরিচিত ছিলেন।প্রায় ৫০০ গান রচনা করেন। গানগুলো বাংলা সংগীতজগতে দ্বিজেন্দ্রগীতি নামে পরিচিত। তার বিখ্যাত গান ‘ধনধান্যে পুষ্পে ভরা’,‘বঙ্গ আমার! জননী আমার! ধাত্রী আমার! আমার দেশ’ ইত্যাদি আজও জনপ্রিয়।

বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায় (১৮৯৯ – ১৯৭৯)

বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায় একজন বাঙালি কথাসাহিত্যিক, নাট্যকার ও কবি। তিনি বনফুল ছদ্মনামেই অধিক পরিচিত। শনিবারের চিঠিতে ব্যঙ্গ কবিতা ও প্যারডি কবিতা লিখে সাহিত্যজগতে নিজের আসন স্থায়ী করেন। এছাড়া নিয়মিত প্রবাসী, ভারতী এবং সমসাময়িক অন্যান্য পত্রিকায় ছোটগল্প প্রকাশ করেন।

কাজী আনোয়ার হোসেন (১৯৩৬ – বর্তমান)

কাজী আনোয়ার হোসেন একজন বাংলাদেশি লেখক, অনুবাদক, প্রকাশক, এবং জনপ্রিয় মাসুদ রানা সিরিজের স্রষ্টা। সেবা প্রকাশনীর কর্ণধার হিসেবে তিনি ষাটের দশকের মধ্যভাগে মাসুদ রানা নামক গুপ্তচর চরিত্রকে সৃষ্টি করেন। এর কিছু আগে কুয়াশা নামক আরেকটি জনপ্রিয় চরিত্র তার হাতেই জন্ম নিয়েছিল।ছদ্মনাম হিসেবে বিদ্যুৎ মিত্র ও শামসুদ্দীন নওয়াব ব্যবহার করে থাকেন।

মৃত্যুবার্ষিকী

অং সান (১৯১৫ – ১৯৪৭)

মেজর জেনারেল অং সান মিয়ানমারের স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রধান নেতা ও সমরনায়ক। ১৯৪৭ সালের ১৯ জুলাই মিয়ানমারের স্বাধীনতা-চুক্তি স্বাক্ষরের মাত্র ছয় মাস আগে আততায়ীর গুলিতে তিনি নিহত হন। আজও মিয়ানমারের জনগণ তাকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে এবং ‘বগিয়োকে’ নামে ডেকে থাকে। অং সান নোবেল শান্তি পুরস্কারজয়ী অং সান সু চির বাবা।

হুমায়ূন আহমেদ (১৯৪৮ – ২০১২)

হুমায়ূন আহমেদ ছিলেন একজন বাংলাদেশি ঔপন্যাসিক, ছোটগল্পকার, নাট্যকার, গীতিকার, চিত্রনাট্যকার ও চলচ্চিত্র নির্মাতা। তিনি বিংশ শতাব্দীর জনপ্রিয় বাঙালি কথাসাহিত্যিকদের মধ্যে অন্যতম। বলা হয় আধুনিক বাংলা কল্পবিজ্ঞান সাহিত্যের পথিকৃৎ। তার প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা তিন শতাধিক। বাংলা কথাসাহিত্যে তিনি সংলাপপ্রধান নতুন শৈলীর জনক। তার বেশকিছু গ্রন্থ পৃথিবীর নানা ভাষায় অনূদিত হয়েছে, বেশকিছু গ্রন্থ স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যসূচির অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button