অপরাধসারাদেশ

২০০ টাকার জন্য টাঙ্গাইলে ৪ খুন, মূলহোতাকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব

ইনভেস্টিগেশন রিপোর্ট : টাঙ্গাইলের মধুপুরে একই পরিবারের ৪ সদস্যকে হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামি সাগর আলীকে (২৭) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১২। রবিবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে উপজেলার ব্রাহ্মণবাড়ী এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি ব্রহ্মণবাড়ি এলাকার মগবর আলীর ছেলে।

টাঙ্গাইল র‌্যাব-১২ সিপিসি-৩ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর আবু নাঈম মোহাম্মদ তালাত জানান, আসামীকে জিজ্ঞেসাবাদে সে হত্যার সত্যতা স্বীকার করেছে। নিহত আব্দুল গনি সুদের ব্যবসা করতেন। আসামী সাগর আলীর সঙ্গে আগে থেকেই সুদের লেনদেন ছিল। আসামী বেশ কয়েকবার সুদের টাকা দিতে ব্যর্থ হয়। মঙ্গলবার আব্দুল গনির কাছে দুই’শ টাকার জন্য গেলে তাকে অনেক বকাঝকা করে তাড়িয়ে দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, এতে সাগর অপমান বোধ করে। অপর এক সহযোগীকে নিয়ে হত্যা এবং টাকা ও সম্পদ লুটের পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী সাগর তার সহযোগীকে নিয়ে বুধবার রাত আনুমানিক ১০টায় গনির বাসায় যায়। তার সহযোগী বাজার থেকে চেতনানাশক নিয়ে যায়। আসামী পূর্ব পরিচিত হওয়ায় খুব স্বাভাবিক ভাবে বাসায় ঢোকার অনুমতি পায়।

র‌্যাব জানায়, প্রথমে গনিকে অচেতন করে সাগর ও তার সহযোগী। পরিবারে অন্যরা ঘুমিয়ে থাকায় অচেতন করা সহজ হয়। এরপর ওই বাসায় থাকা কুড়াল ও আসামীদের কাছে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে সবাইকে কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়।

র‌্যাব কর্মকর্তা আরো জানান, হতার পর তারা বাসার মূল্যবান জিনিসপত্র বাসার বাইরে থেকে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়। আসামীর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পরবর্তীতে আসামীর বোনের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়ি (মজিদ চালা) থেকে হত্যায় ব্যবহৃত ধারালো চাকু ও লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার করা হয়। অপর সহযোগীকে গ্রেফতার করতে র‌্যাব-১২ এর অভিযান চলমান রয়েছে।

শুক্রবার সকালে মধুপুর উপজেলা সদরের মাস্টার পাড়া উত্তরা আবাসিক এলাকার নিজ বাড়ি থেকে ব্যবসায়ী আব্দুল গনি (৫২), তার স্ত্রী তাজিরন বেগম (৪২), ছেলে কলেজ ছাত্র তাজেল (১৭), ও মেয়ে সাদিয়ার (৯) মরদেহ উদ্ধার করা হয়। শুক্রবার রাতেই গনি মিয়ার বড় মেয়ে সোনিয়া বেগম বাদি হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামী করে মধুপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। শনিবার লাশ টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়। বিকেলে লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে আব্দুল গনির পৈতৃক বাড়ি মধুপুরের গোলাবাড়িতে লাশগুলো দাফন করা হয়।

পিএনএস/এএ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button