আন্তর্জাতিক

চীনা অ্যাপের বিরুদ্ধে শিগগিরই ব্যবস্থা নিচ্ছেন ট্রাম্প

প্রকাশিত : ২৩:২৮, আগস্ট ০৩,২০২০
ইনভেস্টিগেশন ডেস্ক : চীনা অ্যাপের বিরুদ্ধে শিগগিরই ব্যবস্থা নেবেন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। একথা জানালেন মার্কিন পররাষ্ট্র সচিব মাইক পম্পেও। এরই মধ্যে চীনা কোম্পানির কাছ থেকে টিকটক কেনার জন্য আলোচনা চালাচ্ছে মাইক্রোসফট।

কিছুদিন আগেই ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিরাপত্তার কারণে ৫৯টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন। তার মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয় টিকটকও আছে। এ বার ‘বন্ধু’ মোদীর পথ অনুসরণ করছেন অ্যামেরিকার প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও জানিয়েছেন, আর দিন কয়েকের মধ্যেই ট্রাম্প চীনা সফটওয়ার কোম্পানিগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন। সেটাও নেয়া হবে নিরাপত্তার কারণেই।

ফক্স নিউজের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে পম্পেও বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এ নিয়ে অনেক কথা বলেছেন। এখন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার পালা। আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই ট্রাম্প ব্যবস্থা নেবেন। জাতীয় নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। চীনের কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে যুক্ত সফটওয়্যার ব্যবহারে প্রবল ঝুঁকি আছে।

তাঁর অভিযোগ, টিকটক উই চ্যাটের মতো অ্যাপগুলি বেজিং সরকারকে অ্যামেরিকার নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্য দেয়। পম্পেও বলেছেন, মার্কিন নাগরিকদের বাড়ি, ফোন নম্বর, তাঁদের বন্ধু তালিকায় কারা আছেন, কাদের সঙ্গে তাঁরা যোগাযোগ রাখেন, সে সব তথ্যই পাচার হতে পারে। সে জন্যই ট্রাম্প বলেছেন, আমরা এই বিষয়৷ গুলি খেয়াল রেখে ব্যবস্থা নেব।

পম্পেরও দাবি, দীর্ঘদিন ধরে গোপনীয়তার অধিকারের বিষয়টি অ্যামেরিকার লোকেদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এতদিন ধরে অ্যামেরিকার মনোভাব ছিল, ঠিক আছে, যদি লোকেরা এগুলি ব্যবহার করে আনন্দ পান এবং কোনো কোম্পানি তাতে অর্থ রোজগার করতে পারে তাতে অসুবিধে নেই। কিন্তু এখন দেশের নিরাপত্তা ও লোকের গোপনীয়তার অধিকারের উপর আঘাতের বিষয়টি সামনে এসে পড়েছে।

অন্য একটি সাক্ষাৎকারে মার্কিন রাজস্ব সচিব বলেছেন, বিদেশি বিনিয়োগ সম্পর্কিত কমিটি টিকটক এর বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। তারা বিদেশি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে জাতীয় নিরাপত্তার বিষয়টিও সামগ্রিক ভাবে খতিয়ে দেখবে। তিনি এবিসি নিউজকে বলেছেন, পুরো কমিটি একমত যে, টিকটক তার বর্তমান ফরম্যাটে থাকতে পারে না। কারণ, এতে ১০ কোটি অ্যামেরিকান ঝুঁকির মধ্যে পড়ে যাবেন। তাঁদের তথ্য পাচারের ঝুঁকি থাকবে। তাই হয় এই অ্যাপ ব্লক করতে হবে, না হয় অন্যকে কিনে নিতে হবে।

গত শুক্রবারই ট্রাম্প ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে, তিনি শীঘ্রই টিকটক নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে পারেন। তাছাড়া ভিডিও শেয়ার করার অ্যাপও নিষিদ্ধ করা হতে পারে।

টিকটক অবশ্য দাবি করেছে, তাঁরা অ্যামেরিকায় অ্যাপ ব্যবহারকারীদের তথ্য অ্যামেরিকাতেই স্টোর করে রাখে। চীনে নিয়ে যায় না। তাঁরা অ্যাপ ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তার অধিকার বজায় রাখে। তারপরেও টিকটকের কর্তারা হোয়াইট হাউসের সঙ্গে সমঝোতায় এসে অ্যামেরিকায় তাঁদের পুরো ব্যবসা মাইক্রো সফটের কাছে বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছিলেন। মাইক্রোসফট সিইও জানিয়েছেন, তিনি ট্রাম্পের সঙ্গে সরাসরি কথা বলেছেন এবং এই ডিল নিয়ে কথাবার্তা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যেতে পারে। মাইক্রোসফটের দাবি, ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে চুক্তি সম্পূর্ণ হয়ে যেতে পারে।

সূত্র: ডিডব্লিউ

পিএনএস/এএ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button