বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

পাঁচ নিয়ম মানলে বাড়বে ওয়াইফাইয়ের গতি

প্রকাশিত : ০৯:০২৫, আগস্ট ০৯,২০২০

ইনভেস্টিগেশন ডেস্ক : আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগে ইন্টারনেট ছাড়া জীবন কাটানো প্রায় অসম্ভব। পুরো বিশ্বের সব তথ্য, যোগাযোগসহ নানা পরিষেবা ইন্টারনেটের মাধ্যমেই সম্পন্ন হয়। আর নির্বিঘ্নে ঘর বা অফিসে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে ওয়াইফাইয়ের ঝুড়ি নেই। তবে নানা কারণে ওয়াইফাইয়ে ইন্টারনেটের নিরবিচ্ছিন্ন গতি মেলে না। তাই পাঁচ নিয়ম মানলে ঘর বা অফিসের ওয়াইফাইয়ের ইন্টারনেটের গতি বাড়বে।

রাউটারের অবস্থান দেখুন
কানেকশন নেয়ার সময় তারের পরিমাণ কম রাখায় জানালার পাশে ঘরের এক কোণে রাউটার রাখা হয়। তবে ঘরের কোণে রাউটার রাখা ভুল সিদ্ধান্ত। সবচেয়ে ভালো কাভারেজ পেতে রাউটারকে বাড়ির মাঝের ঘরে রাখতে হয়। কারণ ওয়াইফাই ডাইরেকশনালি ছড়ায়। তাই এক কোণে রাখলে অর্ধেক সিগন্যাল বাড়ির বাইরে চলে যাবে। এতে স্পিড কমে যায়।

চোখের উচ্চতায় রাউটার রাখুন
মাটি থেকে অন্তত পাঁচ ফুট উচ্চতায় রাউটারটি বসালে সিগন্যাল সবচেয়ে ভালো পাওয়া যায়। তাই নিজের চোখের উচ্চতায় রাউটার রাখুন। তবে সিগন্যাল ব্যাঘাত সৃষ্টিকারী কোনো ডিভাইসের সঙ্গে রাউটার রাখা যাবে না। যেমন, কর্ডলেস ফোনের বেস, অন্য কোনো রাউটার, প্রিন্টার, মাইক্রোওয়েভ ইত্যাদি।

কম ডিভাইস কানেক্ট করুন
বাড়িতে চলা অনুষ্ঠান বা পার্টিতে আসা বন্ধুবান্ধব-আত্মীয়দের ওয়াইফাই কানেক্ট করে কাজের চেষ্টা করবেন না। কারণ এক সঙ্গে বেশি ডিভাইস রাউটারের সঙ্গে কানেক্ট করলে ইন্টারনেটের স্পিড কমে যাবে। এখন বেশ কিছু রাউটারে ডিভাইস ব্লকের অপশন রেখেছ। কোনো নির্দিষ্ট ডিভাইস বেশি ব্যান্ডউইডথ টেনে নিলে তা ব্লক করুন। শুধু ইন্টারনেট সার্ফ করতে ওয়াইফাই ব্যবহার করতে বলুন। ওয়াইফাইয়ে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীকে কোনো কিছু ডাউনলোড করতে অপেক্ষা বা নিষেধ করুন।

রিপিটার কানেক্ট করুন
রিপিটার ওয়াইফাই স্পিড বেশ কিছুটা বাড়িয়ে দেবে। অনলাইন শপিং সাইট বা বাজারে বহু রিপিটার পেয়ে যাবেন। যার দাম এক হাজার টাকা থেকে শুরু হয়। খুব সহজে কনফিগার করাও যায়। বাড়িতে যদি পুরনো কোনো ভালো রাউটার থাকে সেটাও রিপিটার হিসেবে ব্যবহার করুন। কিন্তু তার জন্য সেটিং পেজে গিয়ে কনফিগার সেট করতে হবে।

ইউএসবি রাউটার ব্যবহার করুন
রাউটার কেনার আগে ইউএসবি পোর্ট আছে কি না দেখে নিন। ইউএসবি পোর্টযুক্ত রাউটার কিনতে চেষ্টা করুন। কারণ ইউএসবি পোর্ট থাকলে তাতে এক্সটার্নাল হার্ড ড্রাইভ কানেক্ট করতে পারেন। সমস্ত কানেক্টেড ডিভাইজের জন্য এটা নেটওয়ার্ক স্টোরেজের মতো কাজ করবে।

এছাড়া প্রিন্টার কানেক্ট করা যেতে পারে। এতে কোনো একটি ডিভাইসের সঙ্গে কানেক্ট করার প্রয়োজন পড়বে না। নেটওয়ার্কে থাকা যেকোনো ডিভাইস থেকে প্রিন্ট দেয়া যাবে। এ ধরনের রাউটার বেশ শক্তিশালী হয়। তাতে বেশ ভালোভাবে সিগন্যালও পাওয়া যায়।

পিএনএস/এএ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button